DjM Originals

Live Update : সাইক্লোন ঘূর্ণিঝড় আম্ফান

সাইক্লোন ঘূর্ণিঝড় আম্ফান, কি হবে ফলাফল?
সাইক্লোন ঘূর্ণিঝড় আম্ফন, কি হব হচ্ছে ফলাফল?

আম্ফন, আম্ফান, অ্যাম্ফান কলকাতা আই এম ডি এর অনুসারে এই ঘুর্ণবত এর সৃষ্টি দীঘা থেকে ১৭৭ কিমি দূরে দক্ষিণ পূর্ব দিকে। আর এই কারনে এই ঝড় কলকাতা তে বেশি প্রভাব ফেলবে ফনি ঝড় এর থেকে। বিশেষজ্ঞ দের মতে এই ঝড় কলকাতা এর নিকট উত্তর এবং উত্তর পূর্ব এর দিকে বাড়ার সম্ভাবনা তীব্র।

আগেই আমরা ফনি এর সাথে মোকাবিলা করে এসেছি। যদিও সেই ফনি সব জায়গায় তাণ্ডব দেখায়নি। কিন্তু যেখানে দেখিয়াছে সেখানে সব নিঃস্ব জয়ে গেছে। ফনি এর পর এবার এসেছে ঘুর্ণবাত ঝড় অম্ফান। বিশেষজ্ঞ দের মতে এই ঝড় আরো ভয়াবহ রূপ ধারণ করতে পারে।

কলকাতা আই এম ডি এর অনুসারে এই ঘুর্ণবত এর সৃষ্টি দীঘা থেকে ১৭৭ কিমি দূরে দক্ষিণ পূর্ব দিকে। আর এই কারনে এই ঝড় কলকাতা তে বেশি প্রভাব ফেলবে ফনি ঝড় এর থেকে। বিশেষজ্ঞ দের মতে এই ঝড় কলকাতা এর নিকট উত্তর এবং উত্তর পূর্ব এর দিকে বাড়ার সম্ভাবনা তীব্র। 
এনডিআরএফ এর প্রধান এম এন প্রধান বলেছেন যে উড়িষ্যা এর নিকট হাওয়া এর গতি তীব্র হয়েছে। পারাদ্বীপ এ 100 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় এই মুহূর্তে হাওয়া চলছে। এখনো পশ্চিমবঙ্গে এই হাওয়ার বেগ অতটা তীব্র হয়নি।
ওড়িশা এর বালাসোর এবং ভদ্রক অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে দেড় লক্ষ লোক অন্য জায়গায় স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এম এন প্রধান আরো বলেছেন যে , আমাদের লক্ষ্য সব সময় এই ঝড়ের গতির উপরেই রয়েছে। এই ঝড়ের কারণে চার থেকে পাঁচ মিটার সমুদ্র ঢেউ ওঠার আশঙ্কাও রয়েছে। এনডিএফের টিম স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে এই বিষয়ে যুগ্মভাবে কাজ করে চলছে। ওড়িশা এবং পশ্চিমবঙ্গে 41 টি দল এখনো নিযুক্ত করা হয়েছে।
ভারতীয় নৌসেনা বলেছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান কে নজরে রেখে উড়িষ্যা এবং পশ্চিমবঙ্গ জেমিনি বোর্ড এবং মেডিকেল টিমের সঙ্গে কুড়িটি বাঁচাও দল তৈরি থাকবে।

লাইভ আপডেট আম্ফন / অ্যাম্ফান / অ্যাম্ফন / আম্ফাণ

ক্ষতিগ্রস্থদের ২৯২১ টি ত্রাণ শিবিরে রাখা হয়েছে

বিশেষ ত্রাণ কমিশনার পি কে জেনা বলেছেন যে ওড়িশার নিম্নাঞ্চলে বসবাসরত প্রায় ১.৪৪ লক্ষ মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তাদের ২৯২১ টি ত্রাণ শিবিরে রাখা হয়েছে যেখানে খাবার ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা সরবরাহ করা হয়েছে।

গাছ এবং কাঁচা বাড়ির ক্ষতি

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আমফানের ঝড়টি ওড়িশার বেশ ক্ষতি করেছে, বঙ্গোপসাগর বরাবর চলেছে সে ঝড়। প্রচুর গাছ উপড়ে পড়েছে এবং ভারী বাতাসে প্রচুর অপরিশোধিত বাড়িঘর ভেঙে পড়ছে।

ওড়িশার ভদ্রক এবং বালাসোরে ক্ষতি হবে

ওড়িশার ভদ্রক এবং বালাসোরের ক্ষতি হবে দুই থেকে তিন ঘন্টা। এর পরে ওড়িশা আর কোনও সমস্যায় পড়বেন না – আইএমডি প্রধান মৃত্যুঞ্জয় মহাপাত্র।

সুপার সাইক্লোন আমফান পশ্চিমবঙ্গে সুন্দরবনে পৌঁছে গেছে।

ঝড়ের কারণে ওড়িশা ওড়িশায় প্রায় 106 কিমি প্রতি ঘন্টা গতিবেগে বেগে চলছে। আমাদের ধারণা ছিল যে ঝড়ের প্রভাবের কারণে ওড়িশা মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হবে, যা ঘটছে। সুপার সাইক্লোনটি আজ সন্ধ্যা নাগাদ কলকাতায় পৌঁছবে বলে আশা করা হচ্ছে। আমাদের অনুমান অনুসারে, এই ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ১১০ কিমি হবে কলকাতায় পৌঁছতে।

এনডিআরএফের ডিজি এসএন প্রধান বলেছেন:

আমাদের কাজ অবতরণের পরে শুরু হয়। আমাদের দৃষ্টি পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশা উভয়ের দিকেই। ওড়িশায় ২০ টি দল এবং পশ্চিমবঙ্গে ১৯ টি দল রয়েছে। দুটি দল স্ট্যান্ডবাইতে রয়েছে। সুপার সাইক্লোন আমফান পশ্চিমবঙ্গে সুন্দরবনে পৌঁছে যাচ্ছে।
এনডিআরএফ প্রধান এসএন প্রসাদ বলেছেন, “ঘূর্ণিঝড় ফ্যানির অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে ঝড়ের পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সমস্ত দল গাছ এবং খুঁটি কাটার মেশিন নিয়ে প্রস্তুত রয়েছে।”

সাড়ে ছয় লক্ষেরও বেশি লোককে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এনডিআরএফ প্রধান এসএন প্রসাদ বলেছেন, পশ্চিম বঙ্গে। ৬.৫ লক্ষেরও বেশি লোককে বাংলা ও ওড়িশায় নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। পশ্চিম বাংলায় ৫ লক্ষ এবং ওড়িশায় ১,৫৮,৬৪০ সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

ভারতীয় আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের অনুসারে পশ্চিমবাংলার তট থেকে উৎপন্ন ঘূর্ণবাত আম্ফন এর ল্যান্ডফল বিকেল চারটে থেকে শুরু হবার ধারণা করা যাচ্ছে। এই সময়ের হাওয়ার গতি 155 কিলোমিটার থেকে 185 কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে।

এরইমধ্যে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় মুষলধারে বর্ষা শুরু হয়ে গেছে। সংবাদ বিভাগ আইএএনএস এর অনুসারে কলকাতা এর দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলায় এবং মেদিনীপুরের তট এবং দীঘা ও হলদিয়া এর নামখানা, ফ্রেঞ্চগঞ্জ, সাগরদ্বীপ ও কাকদ্বীপ এর মত এলাকায় মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়ে গেছে।

এই ঘূর্ণবাত দীঘা হাতিয়া তট থেকে সুন্দরবন এর কাছে অবস্থিত অংশ এর সঙ্গে ধাক্কা খাবে। এবং এই কারণে হাওয়ার গতি 155 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা থেকে 185 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

বাংলা এর তট থেকে উৎপন্ন ঘূর্ণবাত আম্ফন এর কারণে কাল সকাল পাঁচটা পর্যন্ত কলকাতা এয়ারপোর্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে করোনা ভাইরাস এর কারণে যে বিমান গুলি সঞ্চালিত করা হয়েছিল, সেগুলিও বন্ধ করা হয়েছে। কলকাতা বিমানবন্দরের নির্দেশক এই খবরটি পাঠিয়েছেন।

Leave a Comment

x